1. admin@protidinbd24.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ০৪:০৫ পূর্বাহ্ন
আমাদের ভিষন;
*সত্য প্রকাশে আমরা দূর্বার*
প্রধান খবর
দাম বাড়লো চামড়ার প্রতি বর্গফুট গরুর চামড়া ৪৭–৫৫ টাকা শিক্ষকরা নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের কোচিং বা প্রাইভেট পড়াতে পারবেন না; যেসব রুট ধরে পদ্মা সেতু হয়ে ইউরোপে যাবে ট্রেন পদ্মা সেতু: ৩৫ বছরে সরকারের দেওয়া অর্থ পরিশোধ করবে সেতু কর্তৃপক্ষ; পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট-বল্টু খুলে টিকটক ভিডিও তৈরি করা যুবক আটক সর্বনিম্ম ২ ঘন্টা থেকে ২০ ঘণ্টার দুর্ভোগ ৬ মিনিটে শেষ পদ্মা সেতুতে কোনো যানবহন দাড় করিয়ে ছবি তোলা যাবেনা; কুমিল্লা সিটি মেয়র নির্বাচনে হার-জিতের ইতিবৃত্ত; স্বপ্নের পদ্মা সেতু: সূচনা থেকে সর্বশেষ ইতিবৃত্ত তিনিই কি দূর্নীতির বরপুত্র? নাকি হাতির দন্ত! পদ্মা সেতুর টোল সংযোজন করে ভাড়া বাড়লো ১০টাকা; দক্ষিণ বঙ্গের ১৩টি রুটের বাসভাড়া নির্ধারণ; রাসুল (সঃ) কে নিয়ে কটূক্তি করায় বিজেপি নেতা গ্রেপ্তার ২৫তারিখেই উদ্বোধন হবে স্বপ্নের পদ্মা সেতু; পদ্মা সেতু নির্মাণ ব্যয় নিয়ে স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর মিথ্যা প্রচারণাগুলোকে নিন্দা জানাই॥ Abc চট্টগ্রাম হাটহাজরীতে সাতবাচ্চার জম্ম দিয়েছেন এক মা; বার কাউন্সিল নির্বাচন: আ.লীগের সাদা প্যানেল ১০ ও বিএনপির নীল প্যানেল ৪ পদে জয়; দূর্নীতি মামলায় নর্থ সাউথের ৪ ট্রাস্টি সদস্য কারগারে; ভূমি সংস্কারে নতুন আইন, ব্যক্তি পর্যায়ে ৬০ বিঘা মালিকানার সুযোগ, বেশী হলে বাজেয়াপ্ত। পিকে (প্রশান্ত কুমার) হালদার ইস্যুতে চার সংস্থায় তথ্য চেয়ে চিঠি দিয়েছে দুদক।

ইসলামী আন্দোলনের সভায় নুরল হক নুর।

  • রবিবার, ৩০ আগস্ট, ২০২০
  • ২৬০ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক ;

বর্তমানে সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলা যতটা সহজ ভারতের বিরুদ্ধে কথা বলা তার থেকেও বেশি কঠিন। আর এর সব থেকে বেশি ভুক্তভোগী আমরা বলে মন্তব্য করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসেদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর। শুক্রবার (২৮ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ আয়োজিত আলোচনা সভায় অংশ নিয়ে একথা বলেন ভিপি নুর। এই সভার আলোচনার বিষয় ছিল ‘ভারতীয় অগ্রাসনের স্বরুপ: আমাদের স্বাধীনতার সংকট’।

নুর বলেন, মিডিয়ার আলোচিত অনেক ব্যক্তিবর্গই এই বিষয়ের নাম শুনেই আলোচনায় আসার সাহস করবেন না। কারণ তারা সত্যি জানলেও ব্যক্তিগত ক্ষতির আশঙ্কায় এগুলো নিয়ে কথা বলতে ভয় পেয়ে থাকেন।

তিনি বলেন, গত ডিসেম্বরে ভারত সরকারের করা বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ভারতীয়রা প্রতিবাদ শুরু করে। ভারতের হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান, জৈন, শিখ সবাই মিলে ওই আইনের প্রতিবাদ জানিয়ে বলে আমরা সবাই ভারতের নাগরিক। যেখানে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত সাহা সংসদে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, এক কোটি অবৈধ মুসলিম অভিবাসী এরা বাংলাদেশি। যা বাংলাদেশের সার্বমত্ত্বের উপর আঘাত ছিল। আমরা যদি প্রতিবাদ না জানাতাম তাহলে, ভারত কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের মুসলিম অভিবাসীদের রোহিঙ্গাদের মতো বাংলাদেশের উপর চাপিয়ে দিত। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে এর বিরুদ্ধে কোনো আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ জানানো হয়নি।

তিনি আরও বলেন, আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ডাকসুর পক্ষ থেকে প্রতিবাদ জানিয়েছেলাম। সেই প্রতিবাদের জন্য প্রকাশ্য দিবালোকে সিসি ক্যামেরার সামনে প্রায় ২৪ জন ছাত্রকে আহত করা হয়। তারপর খুব সুপরিকল্পিতভাবে সেই ক্যামেরার হার্ড ডিস্ক সরিয়ে নেয়া হয়। আমরা সরকারকে নিয়ে কিছু বলিনি আমরা বলেছিলাম ভারতকে নিয়ে।

নুর বলেন, আমাদের দেশে এমন অনেকে আছেন যারা ভারতীয় না হলেও ভারতের পক্ষে চিন্তা করেন। এই করোনাকালীন সময়ে আমরা দেখতে পাই সীমান্ত দিয়ে পরিকল্পিত উপায়ে পাগল ঢুকে পড়ছে আমাদের দেশে। এখন তারা আসলেই পাগল নাকি গোয়েন্দা সেটা নিয়ে আমার সন্দেহ আছে।

অথচ চলতি বছরে মহামরির মধ্যেও জানুযারি থেকে জুন পর্যন্ত ২৫ জন বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। করোনার প্রকোপে যেখানে মানুষ না খেতে পেয়ে মারা যাচ্ছে চিকিৎসা পাচ্ছে না, সীমান্ত বন্ধ হয়ে আছে তার মধ্যে ভারত মানুষ মানুষ হত্যা করেছে। অথচ ভারতের সাথে বাকি যে পাঁচ দেশ যুক্ত রয়েছে সেখানে কিন্তু কোনো গুলির আওয়াজ পাওয়া যায় না।

২০১৭ সালে নেপালের সীমান্তে ভারতীয়রা এক নেপালী তরুণকে গুলি করে হত্যা করে। এই জন্য ভারতের মন্ত্রী সমমর্যাদার নেতা ওয়াজিদ দৌহাল নেপালের সরকারের কাছে হাত জোর করে ক্ষমা চান। কিন্তু সীমান্তে বাঙালী হত্যার জন্য ভারত কি কখনো বাংলাদেশের কাছে ক্ষমা চেয়েছে? সরকার কি কখনো কোনো বিবৃতি জানিয়েছে?

নুর বলেন, ভারত আসলে বাংলাদেশকে মনে করে তাদের ইতিহাসের একটি পাদটিকা মাত্র। অর্থাৎ তাদের দীর্ঘ ইতিহাস লিখতে গেলে বাংলাদেশের নামটা আসবে, তারা রাজেনৈতিক অঙ্গ সংগঠনের মতো আমাদের নিয়ন্ত্রণে রেখেছে। কিন্তু মাঝেমধ্যে যখন আমাদের মতো কিছু মানুষ তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করি তখন ভারত এক ধরণের অস্বস্তিতে ভোগে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশেরর সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম। আলোচনা সভায় বিভিন্ন ইসলামিক দলের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

প্রতিদিনবিডি২৪/সাইকা;

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর

Categories

© All rights reserved 2020 protidinbd24

কারিগরি সহায়তা WhatHappen