1. admin@protidinbd24.com : admin :
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৪:৩৩ অপরাহ্ন
আমাদের ভিষন;
*সত্য প্রকাশে আমরা দূর্বার*
প্রধান খবর
শিক্ষকরা নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের কোচিং বা প্রাইভেট পড়াতে পারবেন না; যেসব রুট ধরে পদ্মা সেতু হয়ে ইউরোপে যাবে ট্রেন পদ্মা সেতু: ৩৫ বছরে সরকারের দেওয়া অর্থ পরিশোধ করবে সেতু কর্তৃপক্ষ; পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট-বল্টু খুলে টিকটক ভিডিও তৈরি করা যুবক আটক সর্বনিম্ম ২ ঘন্টা থেকে ২০ ঘণ্টার দুর্ভোগ ৬ মিনিটে শেষ পদ্মা সেতুতে কোনো যানবহন দাড় করিয়ে ছবি তোলা যাবেনা; কুমিল্লা সিটি মেয়র নির্বাচনে হার-জিতের ইতিবৃত্ত; স্বপ্নের পদ্মা সেতু: সূচনা থেকে সর্বশেষ ইতিবৃত্ত তিনিই কি দূর্নীতির বরপুত্র? নাকি হাতির দন্ত! পদ্মা সেতুর টোল সংযোজন করে ভাড়া বাড়লো ১০টাকা; দক্ষিণ বঙ্গের ১৩টি রুটের বাসভাড়া নির্ধারণ; রাসুল (সঃ) কে নিয়ে কটূক্তি করায় বিজেপি নেতা গ্রেপ্তার ২৫তারিখেই উদ্বোধন হবে স্বপ্নের পদ্মা সেতু; পদ্মা সেতু নির্মাণ ব্যয় নিয়ে স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর মিথ্যা প্রচারণাগুলোকে নিন্দা জানাই॥ Abc চট্টগ্রাম হাটহাজরীতে সাতবাচ্চার জম্ম দিয়েছেন এক মা; বার কাউন্সিল নির্বাচন: আ.লীগের সাদা প্যানেল ১০ ও বিএনপির নীল প্যানেল ৪ পদে জয়; দূর্নীতি মামলায় নর্থ সাউথের ৪ ট্রাস্টি সদস্য কারগারে; ভূমি সংস্কারে নতুন আইন, ব্যক্তি পর্যায়ে ৬০ বিঘা মালিকানার সুযোগ, বেশী হলে বাজেয়াপ্ত। পিকে (প্রশান্ত কুমার) হালদার ইস্যুতে চার সংস্থায় তথ্য চেয়ে চিঠি দিয়েছে দুদক। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে চলছে বিশেষ প্রস্তুতি;

পাকিস্তানী আবুল আ’লা মওদুদী প্রতিষ্ঠিত উগ্রবাদী সংগঠন জামায়াতে ইসলামীরা মুসলমানের গণ্ডিতে নেই।

  • বৃহস্পতিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৩১৯ বার পড়া হয়েছে

 

আবুল আ’লা মওদুদী প্রতিষ্ঠিত উগ্রবাদী সংগঠন জামায়াতে ইসলামীরা মুসলমানের গণ্ডিতে নেই।

জামায়াতের প্রতিষ্ঠাতা আবু আ’লা মওদুদী পাকিস্তান জন্মের মাত্র কয়েক বছরের মধ্যেই মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত হয়েছিলেন। এই দন্ড মওকুফ হয়েছিলো মুলত যুক্তরাষ্ট্রের চাপে – তখনকার পাকিস্তানে আমেরিকান রাষ্ট্রদূতের ডি-ক্লাসিফাইড যোগাযোগ থেকে বিষয়টা সবাই জানেন। কারন তখন পাকিস্তানকে যুক্তিরাষ্ট্রের খুবই প্রয়োজন ছিলো কমিউনিজমের প্রসার বন্ধ করার জন্যে ধর্ম বিশেষ করে ইসলামকে ব্যবহার করার জন্যে সংঘঠিত শক্তি দরকার ছিলো। যাই কোন – অনেকেই হয়তো জানে না – কাদিয়ানীদের বিরুদ্ধে আন্দোলন এবং সরকারকে কিছু দাবী মানানোর জন্যে মুল আন্দোলন শুরু করেছিলো সদ্য গজিয়ে উঠা একটা অরাজনৈতিক সংগঠন (তাহরিক ই খতমে নবুয়ত) – যারা প্রকৃতপক্ষে জামায়াতের একটা পরিকল্পনার অংশই ছিলো – সাথে ছিলো মুসলিম লীগের উগ্রপন্থীরা। (অনেকটা আজকের বাবু নগরী – মামুনুল হকের হেফাযতে ইসলামের মতোই যার পিছনে জামায়াতের পরিকল্পনা আর বিএনপির একটা অংশে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ মদদ রয়েছে)। যাই হোক – তাদের দাবী ছিলো – তৎকালীন পররাষ্ট্র মন্ত্রী মোহাম্মদ জাফউল্লহ খান – যিনি কাদিয়ানী ছিলেন – তাকে অপসার করা, সরকারী উচ্চপদ থেকে কাদিয়ানীদের অপসারন করা এবং কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষনা করা। সেই দাবী আদায়ের আন্দোলন শুরু হলে কাদিয়ানীদের উপর নেমে আসে নির্যাতন এবং ১৯৫৩ সালের ১ফেব্রুয়ারী একজন কাদিয়ানীর করব দেওয়াকে কেন্দ্র করে দাংগা সূত্রপাত হয় এবং কাদিয়ানীদের হত্যা, তাদের বাড়ীঘরে আগুন জ্বালানো থেকে শুরু করে লুটপাটের মতো ভয়াবহ রূপ লাভ করলে ৪ মার্চ পাকিস্তানে প্রথম আঞ্চলিক মার্শাল ল জারি হয়। মুলত এই দাঙ্গার কারনেই পাকিস্তানের সেনাবাহিনী প্রথম দেশ শাসনের স্বাদ গ্রহনকরে – যার ফলাফল আমরা এবং পাকিস্তানের মানুষ আজও ভোগ করছে। জেনারেল আযম খানের নেতৃত্বে সেই সামরিক শাসনের মেয়াদ ছিলো সেই বছরের ১৪ই মে পর্যন্ত এবং সেই সময় একটা সামরিক আদালত মওদুদী এবং আবুস সাত্তার নিয়াজীকে দাঙ্গা লাগানোর অভিযোগে মৃত্যুদন্ডের দন্ডিত করে।

সবচেয়ে ভয়াবহ ফলাফল এসেছে সে দাঙ্গাকে কেন্দ্র করে রাজনীতিক এবং সিভিল প্রশাসনের উপর সামরিক বাহিনীর প্রাধান্য বিস্তার শুরু – তাদের মতে দূর্বল প্রশাসনিক পদক্ষেপই দাঙ্গার কারন। যার ফলে রাষ্ট্রের ক্ষমতায় ব্যপক পরিবর্তন হয় – নুরুল আমিনকে ক্ষমতা ত্যাগ করতে হয় এবং সামরিক বাহিনীর পছন্দের লোক মোহাম্মদ আলিকে প্রেসিডেন্ট করে শুরু হয় রাষ্ট্র পরিচালনার কাজ – যা ১৯৭১ সালে পাকিস্তান ভাংগার কারন এবং গনহত্যার মতো একটা ভয়াবহ বিষয়কে অনিবার্য করে তুলেছিলো।

সুতরাং দেখা যাচ্ছে জামায়াতের জন্ম লগ্ন থেকেই দাঙ্গা ফ্যাসাদ আর বিপর্যয় তৈরী করে দেশের স্থিতিশীলতা নষ্ট করার ইতিহাস আছে- যারই ধারাবাহিতায় ১৯৭১ সালে এরা আলবদর রাজাকার গঠন করে গনহত্যায় যোগ দিয়েছে – এমনকি এখনও শিবির জঙ্গী নামক সন্ত্রাসী দল তৈরী করে এরা আজও মানুষকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মেরে ত্রাস সৃষ্টি মতো ঘৃন্য কাজ করছে – পুলিশের মাথা থেতলে দিয়ে রাষ্ট্রের আইনশৃংখলা রক্ষা ব্যবস্থাকে পংগু করে দিতে চাইছে – সম্পদ ধংস করার নতুন নতুন পদ্ধতি আবিষ্কার করে একটা দেশে বিপর্যয় সৃষ্টির চেষ্টা করছে – কারন তাদের একদল নেতা ছিলো মানবতাবিরোধী অপরাধের সাথে জড়িত। তারা তাদের আদর্শ।১

(২)
জামায়তের প্রতিষ্টাতা মওদুদীকে একজন বিরাট দার্শনিক বা অতিমানব বানানোর একটা প্রচেষ্টা দেখি জামাতের কর্মীদের মাঝে। সংগত কারনেই তারা তা করে।
মওদুদী কত বড় একজন ইসলামী চিন্তাবিদ বা দার্শনিক তা নিয়ে যাদের কৌতুহল আছে তাদের জন্যে কিছু চমকপ্রদ তথ্য দিয়েছেন মওদুদীর ছেলে সৈয়ধ হায়দার আলী মওদুদী। যিনি বাংলাদেশ সফরে এসে মিডিয়ার মুখোমুখি হয়ে কিছু কথা বলেছিলেন – পাঠকদের জন্যে তার কিছু অংশ তুলি দিচ্ছি – আশা করি তার এই কথা থেকে বর্তমান জামায়াতের নেতাদের বিষয়ে কিছু ধারনা পেতে পারেন। বিশেষ করে ইসলামী শাসন কায়েমের নামে আন্দোলনে যারা ধর্মপ্রান যুবকদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে জড়িত করে, কিন্তু নিজের ছেলে মেয়েদের আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে – এমন কি পশ্চিমা দেশে নিরাপদ জীবনে পাঠিয়ে দেয়।

আসুন দেখি মওদুদীর ছেলে হায়দার ফারুক মওদুদীর কিছু কথা –

১) মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যা,নির্যাতনের জন্য জামায়াতে ইসলামের ক্ষমা চাওয়া উচিত বলে মনে করেন দলটির প্রতিষ্ঠাতা আবুল আলা মওদুদীর ছেলে সৈয়দ হায়দার ফারুক মওদুদী। তিনি বলেন, গণহত্যার এই অভিযোগ কোনভাবেই অস্বীকার করতে পারবে না জামায়াত। বলেছেন, নেতারা তাদের ভুল স্বীকার করে ক্ষমা না চাওয়ার কারণে দলের তরুণ কর্মীরা বিপাকে পড়েছে। তারা কোনদিকে যাবে তা তারা বুঝতে পারছে না।

২) হায়দার মওদুদী বলেন, মুক্তিযুদ্ধ চলাচালে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় শাখার প্রধান জেনারেল আমির আব্দুল্লাহ খান নিয়াজী একবার পাকিস্তানে তাদের বাসায় গিয়েছিলেন। এ সময় তিনি বাঙালিদের দমনে আলবদর বাহিনী গঠন এবং তাদের প্রশিক্ষণের কথা স্বীকার করেন।

৩) মওদুদীর ছেলে বলেন, আলবদর বাহিনীর সাথে জামায়াতের সম্পর্ক অস্বীকার করার সুযোগ নেই। কারণ এই বাহিনীর আঞ্চলিক প্রধান ছিলেন মতিউর রহমান নিজামী। মুক্তিযুদ্ধ চলার সময় তিনি একবারে ১৫ জন বাঙালিকে হত্যা করার কথা জানিয়েছিলেন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে। তার ওপরে ছিলেন জামায়াতের একজন নায়েবে আমির। এরপরও জামায়াতের এই কথা অস্বীকার করার সুযোগ নেই।

৪) মওদুদীর ছেলে বলেন, ‘অপরাধ স্বীকার করে জামায়াতের ক্ষমা চাওয়া উচিৎ। তারা বলতে পারে, আমাদের নেতারা যা করেছে তা ভুল করেছে। আমরা এর জন্য ক্ষমা চাই। নইলে দলের তরুণরা কোনদিকে যাবে? তারা না পারছে এইদিকে থাকতে না পারছে ওদিকে যেতে’।

৫) মওদুদীর ছেলে হয়েও জামায়াতে যোগ দেননি হায়দার মওদুদী। কেবল তিনি না, তাদের ৯ভাইয়ের কাউকে জামায়াতের রাজনীতিতে জড়াতে দেননি মওদুদী। তিনি জানান, কেবল রাজনীতি না, জামায়াতের কোনো বইপত্র পড়তে দেননি তাঁর বাবা।

৬) সৈয়দ হায়দার ফারুক মওদুদী জানান, জামায়াত প্রতিষ্ঠার আগে ভারতে প্রখ্যাত মুসলিম নেতা আবুল কালাম আযাদের সঙ্গে তার বাবার কথা হয়েছিল। জামায়াতের গঠনতন্ত্র এবং উদ্দেশ্য পড়ে আযাদ তাঁকে এমন কোনো দল গড়তে নিষেধ করেছিলেন। এ ধরনের দল হলে সব সাম্প্রদায়িক শক্তি এতে ভিড় করবে বলেও হুঁশিয়ার দিয়েছিলেন তিনি। হায়দার ফারুক মওদুদী বলেন, আবুল কালাম আযাদের ভবিষ্যতবাণী সত্য হয়েছে।

৭) হায়দার ফারুক মওদুদী বলেন, কেউ জামায়াতের বিরোধীতা করলেই তাকে অমুসলিক-কাফের বলে তারা। কিন্তু ইসলামের নামে এভাবে বিভক্তি করা কোনো মুসলমান করতে পারে না। তিনি বলেন, মুসলিম লীগ বলতো কেবল তারাই মুসলমান। জামায়াতও তাই করে। এটা কেমন কথা। এরা ইসলামের নামে এভাবে বিভক্তি করে ইসলামের ক্ষতি করছে। মহানবী (সা.) এর দল একটিই। কোনো ইসলামী দল একে ভাগ করতে পারে না।

৮) মওদুদীর ছেলে বলেন, ইসলামের নামেই জামায়াত সব অপকর্ম করেছে। তারা আল্লাহু আকবার বলেই মুসলমানদের হত্যা করেছে। এটা কেমন কথা? আল্লাহ্ তো বলেছেন হত্যা করা গুরুতর অপরাধ।

এই হলো মওদুদীর সবচেয়ে ঘনিষ্ট মানুষের কথা আর তা নিয়ে জামায়াতের নেতা কর্মীদের বক্তব্য সহজেই অনুমেয়। তারা সব কিছুই অস্বীকার করবে এবং এর মধ্যে ষড়যন্ত্র খুঁজে বের করবে। কারন মানুষ তার নফসের তাগিদেই তার পথ খুঁজে বেড়ায় এবং যা তার নফস তাকে অনুসরন করতে বলে – একদল মানুষ তাকেই অনুসরন করে। এই ক্ষেত্রে মওদুদী বেঁচে থাকলে এবং তার মতবাদের ভুল সংশোধনের চেষ্টা করলেও কিছু লোক তার বিরোধীতা করতো – কারন তাদের নফস তাদের জন্যে ভুলকেই শোভনীয় করে দেখাবে। এতো ঘটনার পরেও যখন জামায়াতের যুবকরা তাদের নেতাদের অন্যায়কেই সমর্থন করছে – তাদের বিচার নিয়ে কূটতর্ক করছে – কিন্তু কখনও বলছে না – বিচার অবশ্যই হতে হবে – এবং ৭১ এর অন্যায়ের জন্যে ক্ষমা চাইতে হবে – তখন বুঝতেই হবে – তাদের এই ভুলকেই তাদের নফস শোভনীয় করে রেখেছে এবং এর পিছনেই হয়তো এরা আমৃত্যু দৌড়িবে – যদি না আল্লাহ তাদের সঠিক পথ দেখায়।

আবুল কালাম আজাদ ;
৭নং ওয়ার্ড,
ঢাকা মহানগর উত্তর।

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর

Categories

© All rights reserved 2020 protidinbd24

কারিগরি সহায়তা WhatHappen