1. admin@protidinbd24.com : admin :
সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৫:১৮ পূর্বাহ্ন
আমাদের ভিষন;
*সত্য প্রকাশে আমরা দূর্বার*
প্রধান খবর
শিক্ষকরা নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের কোচিং বা প্রাইভেট পড়াতে পারবেন না; যেসব রুট ধরে পদ্মা সেতু হয়ে ইউরোপে যাবে ট্রেন পদ্মা সেতু: ৩৫ বছরে সরকারের দেওয়া অর্থ পরিশোধ করবে সেতু কর্তৃপক্ষ; পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট-বল্টু খুলে টিকটক ভিডিও তৈরি করা যুবক আটক সর্বনিম্ম ২ ঘন্টা থেকে ২০ ঘণ্টার দুর্ভোগ ৬ মিনিটে শেষ পদ্মা সেতুতে কোনো যানবহন দাড় করিয়ে ছবি তোলা যাবেনা; কুমিল্লা সিটি মেয়র নির্বাচনে হার-জিতের ইতিবৃত্ত; স্বপ্নের পদ্মা সেতু: সূচনা থেকে সর্বশেষ ইতিবৃত্ত তিনিই কি দূর্নীতির বরপুত্র? নাকি হাতির দন্ত! পদ্মা সেতুর টোল সংযোজন করে ভাড়া বাড়লো ১০টাকা; দক্ষিণ বঙ্গের ১৩টি রুটের বাসভাড়া নির্ধারণ; রাসুল (সঃ) কে নিয়ে কটূক্তি করায় বিজেপি নেতা গ্রেপ্তার ২৫তারিখেই উদ্বোধন হবে স্বপ্নের পদ্মা সেতু; পদ্মা সেতু নির্মাণ ব্যয় নিয়ে স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর মিথ্যা প্রচারণাগুলোকে নিন্দা জানাই॥ Abc চট্টগ্রাম হাটহাজরীতে সাতবাচ্চার জম্ম দিয়েছেন এক মা; বার কাউন্সিল নির্বাচন: আ.লীগের সাদা প্যানেল ১০ ও বিএনপির নীল প্যানেল ৪ পদে জয়; দূর্নীতি মামলায় নর্থ সাউথের ৪ ট্রাস্টি সদস্য কারগারে; ভূমি সংস্কারে নতুন আইন, ব্যক্তি পর্যায়ে ৬০ বিঘা মালিকানার সুযোগ, বেশী হলে বাজেয়াপ্ত। পিকে (প্রশান্ত কুমার) হালদার ইস্যুতে চার সংস্থায় তথ্য চেয়ে চিঠি দিয়েছে দুদক। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে চলছে বিশেষ প্রস্তুতি;

মনিপুর স্কুলকে দূর্নীতি মুক্ত করতে হলে এমপিও থেকে সরকারী করন জরুরী।

  • সোমবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২১৪ বার পড়া হয়েছে

 

অনলাইন ডেস্ক;

মনিপুর স্কুলের শিক্ষার মান ও সুনাম অক্ষুন্ন রাখতে হলে দূর্নীতি মুক্ত করতে হবে। দূর্নীতিমুক্ত করে শিক্ষক কর্মচারীদের বেতন ভাতা নিয়মিত করন ও অভিভাবকদের খরচের ভার সহনীয় করতে হবে। পরিচালনা কমিটি, শিক্ষক কর্মচারী ও অভিভাবকদের মধ্যে তৈরী করতে হবে সৌহার্দপূর্ন সম্পর্ক। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর সম্পর্ক করতে হবে পিতা/মাতা ও সন্তান সুলভ।শিক্ষার জন্য কোমল পরিবেশ তৈরী করে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার প্রতি মনাকার্ষনীয় করতে হবে। এজন্য দরকার প্রতিষ্ঠানটি সরকারী করন।যেহেতু শিক্ষা জাতীর মেরুদণ্ড, রাষ্ট্রের সরকারী বেসরকারী সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও জাতীয় প্রতিষ্ঠান। তাই কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ব্যাক্তিগত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হতে পারে না।প্রতিষ্ঠান দখল করা তিন ব্যক্তির কাছে ৪০হাজার শিক্ষার্থী পরিবার ও প্রায় সাড়ে আটশত শিক্ষক কর্মাচারী পরিবার জিম্মি থাকতে পারেনা।

দেশে বর্তমানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গুনগত মান সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলির।দেখা যায়, যে কোনো অভিভাবক প্রথমেই তার সন্তান সরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির জন্য চেষ্টা করে থাকে।দ্বিতীয় ধাপে আছে মাউশি সিদ্ধান্ত ও নিয়ম নীতি মোতাবেক যে কোনো এমপিও ভুক্ত বা ননএমপিও স্কুলগুলি।
আর যে সকল ননএমপিও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান আছে তারা করে অর্থ বানিজ্য।দেশে এখন তাদের নিয়েই চলছে যত দূর্নীতি ও অত্যাচারের প্রতিবাদ।মাউশিও তাদের নিয়ে প্রতিনিয়ত অভিযোগ শুনতে হয়।

ফলাফলের দিক থেকে বেসরকারী ননএমপিও স্কুল গুলি ভাল দেখালেও তা শুধু কাগজে কলমে, প্রকৃত তথ্য রয়েছে অন্তরালে।অপ্রিয় সত্য তথ্য হলো বেসরকারী স্কুল গুলি পিএসসি, জেএসসি, এসএসসি পরীক্ষায় ৯৫% বা ১০০% পাশ ফলাফল দেখালেও সেখানে প্রতারনা রয়েছে।যে প্রতারনা দিয়ে সরল মনা অভিভাবকদের ফাঁকি দেয়া হয়।ভাল ফলাফল দেখে অভিভাবকরা ঐ প্রতিষ্ঠানে তার সন্তান ভর্তি করানোর জন্য নিজের শেষ রক্ত বিক্রি করেও সন্তানকে ভর্তি করান।শুরু হয় প্রতারনা ভর্তি বানিজ্য অতঃপর সরল মানুষদের পকেট কাটা।শুধু স্যাম্পল হিসাবে রাখেন কয়েকজন শুনামধন্য শিক্ষক।শিক্ষক নিয়োগ বানিজ্যও হয়।৮০% শিক্ষক নিয়োগ থাকে মোটা অংকের টাকার বিনিময়।সেখানে মানের কোনো বালাই থাকে না।মানহীন শিক্ষক গুলি পরবর্তিতে জড়িয়ে পড়ে কোচিং বানিজ্যে।যার খেসারত দিতে হয় অসহায় অভিভাবকদের।শুরু হয় প্রতিনিয়ত সমস্যা ও অস্থিরতা।ব্যাহত হয় শিক্ষার মান সম্মত পরিবেশ। উল্যেখিত সকল সমস্যা গুলিই রাজধানীর নামী দামি স্কুল গুলিতে বিদ্যমান। মনিপুর স্কুল তার মধ্যে অন্যতম।মনিপুর স্কুলের অনির্বাচিত গভর্নিং বডির সকলের বক্তব্য আমরা সরকারী সিদ্ধান্ত মানতে বাধ্য নই।আমরা মাউশির সিদ্ধান্ত মানতেও পারি নাও মানতে পারি।যদিও মনিপুর স্কুল এখনও এমপিও ভুক্তই আছে।এমপিও নং ২৬১০ ০৪১৩ ০৩” লেভেল অফ এমপিও সেকেণ্ডারী। সে বিষয় সম্প্রতি মাউশি মনিপুর স্কুলের অধ্যক্ষ ফরহাদ হোসেনকে পুনঃ চুক্তি নিয়োগ অবৈধ ও অধ্যক্ষ সিল ব্যবহার করা অবৈধ উল্যেখ করে তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন।নতুন অধ্যক্ষ নিয়োগের সুপারিশ করেছেন।স্কুলের অভ্যন্তরে অনেক কয়েকজন জন শিক্ষক ও কর্মচারীদের সাথে আলোচনা করে জানা যায় তারা ৯০% এমপ্লয়ি ফরহাদ হোসেনের অত্যাচারে অতিষ্ট। ফরহাদ হোসেনের ভয়ে মুখ খুলতে পারেন না।তাদের মতামত ফরহাদ হোসেন বিদায় হলে স্কুলের শিক্ষার মান পরিবেশ প্রকৃত ভালো ফলাফল দেয়া সম্ভব।তারা অনেক অসহায় অবস্থায় আছেন।

আসছে বিস্তারিত—-সংগে থাকুন—

প্রতিদিনবিডি২৪/আসমা;

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর

Categories

© All rights reserved 2020 protidinbd24

কারিগরি সহায়তা WhatHappen